বিজিবির ঘটনা আর ভোলায় সংঘর্ষ একই সূত্রে গাঁথা!

ফেসবুকে আল্লাহ ও রাসূল (স.) সম্পর্কে অবমাননাকর পোস্ট দেয়ার প্রতিবাদকে কেন্দ্র করে ভোলায় পুলিশের গুলিতে অন্তত ১৬ জন নিহত হয়েছেন, আহত অন্তত ১৫০ জন! এখনও ধরপাকড় ও দমন পীড়ন চলছে!

ইসকনের মাসিক ভাতা প্রাপ্ত পুলিশ সুপারের নির্দেশে আর দীর্ঘদিনের বন্ধু শ্যামল দত্তের সহযোগিতায় খুব তাড়াতাড়ি “হ্যাকড আই ডি” তত্ত্বের জন্ম দেয়। তৌহিদী জনতাকে প্রশাসনিক সহযোগিতার বদলে বা তাদের সাথে বসে বিষয়টার শান্তিপূর্ণ মিমাংসা না করে পুলিশ বাহিনীর এই ধরনের হত্যাযজ্ঞ দেশবাসী মেনে নেয় নি।

সাধারণ জনতার উপর গুলির নির্দেশদাতা

উল্লেখ্য যে কয়েকদিন আগে বিজিবির গুলিতে একজন অপেশাদার বিএসএফের মৃত্যুবরণ বাংলাদেশের ইসকন মেনে নিতে পারে নি। আজকের এই ঘটনা ইসকনের স্লিপার সেলের কাজ হওয়ার সুনির্দিষ্ট আলামত পাওয়া গেছে। মূলত সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার দিকে দেশকে উস্কে দেওয়া ইসকনের লক্ষ্য।

তাই দল মত নির্বিশেষে ইসকন ও তার সুবিধাভোগী অঙ্গ সংগঠন আর সহযোগীদের নির্মূল করা এখন জাতীয় দায়িত্ব। বর্তমানে আনসার আর পুলিশ বাহিনীতে প্রায় ১৪ হাজারেরও বেশি ইসকনের স্লিপার সেল হিসেবে কাজ করছে যারা বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

Facebook Comments
Content Protection by DMCA.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.