ইভিএম সংবিধান বিরোধী, ব্যবহার হলে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা: ঐক্যফ্রন্ট 

 

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার হলে সরকার ও নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগে মামলা করার হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ইভিএম সংক্রান্ত এক সেমিনারে ফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা ও জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব এ হুঁশিয়ারি দেন। তিনি বলেন, আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই- কনস্ট্রিটিউশন বায়োলেশন (সংবিধান লঙ্ঘন) হবে ইভিএম ব্যবহার করলে। সংবিধানের বিরোধিতা হবে, রাষ্ট্রদ্রোহিতা হবে। এটা রাষ্ট্রীয় অপরাধ, সাংবিধানিক অপরাধ।

এটা যদি নির্বাচন কমিশন সরকারের আজ্ঞাবহ হয়ে ব্যবহার করতে যায় আমরা আমাদের নেতা সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে সরকার ও নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে মামলা করবো।

আমি নির্বাচন কমিশনকে বলতে চাই, এটা সংবিধান বিরোধী, রাষ্ট্র বিরোধী, মামলা হবে; জেলে যাবেন। আমরা ছাড়বো, দেশের ১৮ কোটি মানুষ ছাড়বে না।

রাজধানীর গুলশান লেকশোর হোটেলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের উদ্যোগে ‘ইভিএমকে না বলুন, আপনার ভোটকে সুরক্ষিত করুন’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন। সেমিনারে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে কিভাবে ভোট কারচুপি করা যায় একটি ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রয়োগিক ব্যবহারে ভোট প্রদান করে তার ফলাফল উপস্থাপন করা হয়। সেখানে দেখানো হয় কিভাবে এক প্রতীকের ভোট অন্য প্রতীকের ঘরে জমা হয়।

সংবিধানের ৬৫ অনুচ্ছেদের ২(এ) ধারা উল্লেখ করে রব বলেন, সেখানে বলা আছে সংসদ গঠন হবে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে। মেশিনে প্রত্যক্ষ করা যায় না। সংবিধানের বলা আছে ডাইরেক্ট (প্রত্যক্ষ) ভোটে সরকার গঠন করতে হবে। প্রশ্নবিদ্ধ ইভিএম এই শর্ত পুরণ করে না। তাই সংবিধান সংশোধন করা ছাড়া ইভিএম ব্যবহার করা যাবে না। প্রত্যক্ষ ভোটের একটি প্রধান শর্ত যে ভোট প্রদান থেকে শুরু করে সর্বশেষ ভোট গণনা পর্যন্ত সকল নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় জনগনের কাছে উন্মুক্ত থাকতে হবে। ইভিএমের বর্তমান প্রস্তাব ও কাঠামো বাংলাদেশের মতো দেশে প্রচন্ডভাবে অগণতান্ত্রিক। জনগণের কাছে এই মেশিনের স্বচ্ছতা নেই, উন্মুক্তও নয়। তিনি বলেন, আমরা ইভিএম ব্যবহার করতে পারবে না, করতে দেবো না। ভোটার ও জনগণ করতে দেবে না। রব বলেন, বাংলাদেশে আমরা কোনো রাজনৈতিক দল, ভোটার ও জনগন ইভিএম ব্যবহার চাইনি।

আমরা যারা নির্বাচনের অংশীদার, যারা নির্বাচন করবো, করাবো, ভোট দেবো, জয়লাভ করবো, সরকার গঠন করবো, আমরা কেউ চাইলাম না। আপনি নির্বাচন কমিশন এতো এডামেন্ট কেনো? আসল ঘটনা হলো আপনি গতবারের ১০ হাজার টাকার মেশিন এবার ২ লাখ টাকা দিয়ে কিনেছেন। হারামটা জায়েজ করার জন্য, টাকাটা খাওয়ার জন্য। জার্মানী, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন উন্নত দেশে ইভিএম বন্ধ হয়ে যাওয়ার ঘটনা তুলে ধরেন আসম আবদুর রব বলেন, ইভিএমের মাধ্যমে ক্ষমতাসীনরা ভোট জালিয়াতি করবে। ইভিএমে ভোট করতে দেয়া হবে না, আপনারা করতে পারবেন না। তারা বলছে, শহর অঞ্চলে সীমিত পর্যায়ে ইভিএম ব্যবহার করবে। আসলে শহরে অঞ্চলে সচেতন ভোটারদের ভোটগুলো জালিয়াতির জন্যই তাদের এই চেষ্টা।

/শীর্ষনিউজ

Facebook Comments
Content Protection by DMCA.com

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.