ঢাকার রাজনীতি নিয়ে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা দ্বিধাবিভক্ত: প্রভাবশালী অংশ আ’লীগের সাথে নাই

বাংলাদেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, প্রতিবেশী দেশের গোয়েন্দা সংস্থার মধ্যে টেনশেনের পারদ তত বাড়ছে। ইতোমধ্যে ঢাকার রাজনীতি নিয়ে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’ দ্বিধাবিভক্ত হয়ে গেছে। আর এর প্রভাবশালী অংশটি আ’লীগের ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা নেই মর্মে জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রে।
 
গত দু’সপ্তাহের মধ্যে দুটি জরিপের রিপোর্ট কেন্দ্রে পাঠিয়েছে সংস্থাটির ঢাকা ব্যুরো। এর মধ্যে একটি রিপোর্ট বলছে, নির্বাচন হলে আ’লীগ এবং তাদের জোট সব মিলিয়ে সর্বোচ্চ ৫৩টি আসন পেতে পারে। অপর একটি রিপোর্ট বলছে, ৩৩টি আসন পেতে পারে। একটি রিপোর্টের সংক্ষিপ্তসার আমাদের হাতে রয়েছে।
 
উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভারতের যেমন টেনশন ছিল চুড়ান্ত, এবং আ’লীগকে দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় আনতে যে ধরনের সরাসরি উদ্যোগ ছিল, এবারে আর তেমনটা নাই। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে ভারতের দীর্ঘকালের মিত্র আওয়ামীলীগ ভারতকে ডিঙিয়ে চীনের মুখাপেক্ষী হয়েছে।
 
আর সবকিছু দেখে শুনে দিল্লি বিকল্প পথ ধরে হাটছে। এমনি অবস্থার মধ্যে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে বিএনপিকে সাথে নিয়ে গঠিত হয়েছে ঐক্যফ্রন্ট। সম্প্রতি বাংলাদেশের ধর্মভিত্তিক দল জামায়াতে ইসলামীর রেজিস্ট্রেশন বাতিল করে ঐক্যফ্রন্ট প্রতিষ্ঠায় একটি মস্তবড় সুবিধা তৈরি করে দেয়ার ঘটনার সাথে সরাসরি যুক্ত ছিল ভারতের গোয়েন্দা সংস্থাটি।
 
তাছাড়া গতকালই ঐক্যফ্রন্টে সদলবলে যোগ দিয়েছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের খাস লোক মুক্তিযোদ্ধা কাদের সিদ্দিকী বীরোত্তম। এতে করে সকলের মনে ধারণা জন্মেছে ঐক্যজোটের প্রতি দিল্লির সমর্থন রয়েছে, এবং বাংলাদেশে ক্ষমতার পালাবদল ঘটছে।
Facebook Comments
Content Protection by DMCA.com

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.