বাড়ি ভাঙার পরে একে আজাদকে এবার দুদকে তলব: ব্যবসায়িদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে অাতঙ্ক!

শেখ হাসিনার গিলোটিনে পড়েছেন শীর্ষ ব্যবসায়ী একে আজাদ! এফবিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি, একাধিক গণমাধ্যমের কর্নধার, হা-মীম গ্রুপের মালিক একে আজাদকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ সরকারি জমি আত্মসাৎ, কর ফাঁকি ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তাকে ৩ এপ্রিল দুদকে তলব করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে একে আজাদের গুলশানের বাড়িতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে রাজউক। ভারী যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে তার ডুপ্লেক্স বাড়ির এক-তৃতীয়াংশ ভেঙে দেয়া হয়। এ অভিযানে অর্ধশত পুলিশ ও অর্ধশত উচ্ছেদকর্মী অংশ নেন।

আসন্ন নির্বাচনে হামিম গ্রুপের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এ কে আজাদ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। তিনি একই সাথে জাতীয় দৈনিক “দৈনিক সমকাল“ ও টিভি চ্যানেল “চ্যানেল টুয়েন্টি ফোর”এরও কর্ণধার। মনোনয়নের জন্য আওয়ামীলীগের শীর্ষ পর্যায়ে যোগাযোগ করলে ঢাকার কোনো একটি আসন থেকে দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে তাকে সবুজ সংকেত দেয়া হয়।

বর্তমান সরকারের সঙ্গে একে আজাদের দহরম মহরম দীর্ঘদিনের। বিশেষ করে ওয়ান ইলেভেনের সংকটাপন্ন সময়ে আওয়ামী লীগের পাশে ছিলেন একে আজাদ। অথচ এই আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ই দু:সময়ের বন্ধু এ কে আজাদের বাড়ি ভাঙা হলো। অন্য কোনো সমাধানে না গিয়ে সোজা বাড়ি ভেঙে দেওয়ার বিষয়টি তো চরম শত্রুর ক্ষেত্রেও ১০ বার চিন্তা করা হয়।

তবে সরকার ঘনিষ্ট ব্যবসায়ীরা ভাবনায় পড়ে গেছেন- হঠাৎ কি এমন হলো যে আজাদের ওপরে সরকারের খড়গ? তবে কি বর্তমান সরকারের সাথে ব্যবসায়ীদের মধুচন্দ্রিমার অবসান হতে যাচ্ছে? অবশ্য বেশ কয়েকটি ব্যবসায়ী গ্রুপের ওপরে ক্ষিপ্ত সরকার স্টীম রোলাও চালিয়েছে। এসব দেখে দেখে অনেক ব্যবাসীয়রা মনে করছেন, ব্যবহার শেষে যেকোনো সময় যে কাউকে ছুড়ে ফেলে দিতে পারে এরা। তাই অনেকেই আপৎকালীন বিকল্প ব্যবস্থা নিয়েছেন। ইতোমধ্যে দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী বসুন্ধরা গ্রুপের আকবর সোবহান শাহআলম আমেরিকাতে প্রচুর ফান্ড সরিয়েছে, নিউ ইয়র্কের ট্রাম্প টাওয়ারে অফিস নিয়েছে।

Facebook Comments
Content Protection by DMCA.com

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.