দেশে ফিরে আসছেন বিচারপতি সিনহা। সরকারে অস্থিরতা!

সদ্য অবসরে যাওয়া প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা সহসাই দেশে ফিরছেন। সরকারের অনুগত মিডিয়ার খবরে বলা হচ্ছে, সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করেই তিনি দেশে আসছেন ৬ মার্চ। গত বুধবার প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টা তাঁকে টেলিফোনে বলেন, ‘আপনি ফিরে আসুন। আমাদের কোনো গ্রিভেন্স নেই। তবে পাগলামী করবেন না।’ তবে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে, দেশে অবস্থানরত শুভকাঙ্খিদের নির্দেশনা পেয়েই তিনি স্বদেশমুখী হচ্ছেন।

এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য খবর হলো, সিনহাপত্মী সুষমা স্বামীর সাথে অল্পকিছু সময় কাটিয়ে ইতোমধ্যেই ঢাকায় ফিরে এসেছেন। অন্যদিকে, সম্প্রতি সুরেন্দ্র সিনহা চার দিনের জন্য ভারতে ঘুরে এসেছেন, বলে জানা গেছে। সেখান থেকে গ্রীন সিগনাল পেয়ে দেশে ফেরার জন্য তৈরী হচ্ছেন।

উল্লেখ্য, সংবিধানের ষোড়শ সংশধানী বাতিল করে দেয়া রায়কে কেন্দ্র করে গত আগস্ট থেকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের সঙ্গে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার সঙ্গে ব্যাপক বিরোধ সৃষ্টি হয়। সরকারের চাপাচাপি, নানা হুমকি ধামকির মধ্যে বিচারপতি সিনহার নেতৃত্বাধীন ছয় সদস্যের আপিল বিভাগ বিশেষ আদালত বসিয়ে বিনাভেটের বর্তমান সংসদ ও হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারকে অবৈধ ঘোষণা করে একটি রায় দেন বলে বিভিন্ন সূত্রে প্রকাশ, তবে জননিরাপত্তার অযুহাতে রায়টি অপ্রকাশিত থাকে। পরে নানা অনাসৃষ্টির মধ্যে অস্ত্রের মুখে বিচারপতি সিনহা ছুটি নিয়ে দেশ ছেড়ে অস্ট্রেলিয়া যান, কিন্তু ছুটির শেষ হওয়ার পরে আর দেশে ফিরতে পারেননি। এ সময় সরকার প্রচার করে- সিঙ্গাপুরে পদত্যাগ করেছেন প্রধান বিচারপতি। দেশে ফিরতে না পেরে তিনি কানাডায় নিজ মেয়ের কাছাকাছি বসবাস শুরু করেন। কিন্তু পরবর্তীতে দেখা যায় পদত্যাগের খবরটি ছিল সরকারের একটি সাজানো নাটক মাত্র। অবশেষে ৩১ জানুয়ারী নির্ধারিত তারিখেই তিনি অবসরে যান।

অবশ্য কারো কারো মতে, আগামীতে দেশে তত্ত্বাবধায়ক গঠন হলে সেই সরকারের প্রধান হতে বিচারপতি সিনহার ডাক পড়তে পারে। কেননা, আগামী ২০২১ সালের শেষ দিন পর্যন্ত  তিনিই থাকবেন সর্বশেষ অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। ষোড়শ সংশোধানীর বিস্তারিত রায়ে বিচারপতি সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগে প্রকাশ করে, সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধানীর রায়ে পরিস্কার করে বলা ছিল- আগামী দু’টি নির্বাচন কেয়ারটেকার সরকারের অধীনে হতে পারে। এর ফলে বিলুপ্ত হওয়া তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা ফেরত আসার রাস্তাা বিচারপতি সিনহা নিজেই তৈরী করে রেখেছেন বলে কারও কারও অভিমত।

বেগম খালেদা জিয়ার কারারুদ্ধ হওয়ার পরে দেশী বিদেশী নানামুখী তৎপরতা, মার্কিনীদের ঘন ঘন সফরের মধ্যে বিচারপতি সিনহার প্রত্যাবর্তনের খবরে সরকারের ভেতরে প্রবল অস্থিরতা শুরু হয়েছে।

Facebook Comments