ধানমন্ডিতে ওবায়দুল কাদেরের রংমহল!

তিনি ওবায়দুল কাদের। রমনীমোহন হার্টথ্রব মন্ত্রী। কবিও বটে। সন্ধার পরে সুরা সাকী নিয়ে বসেন নিজস্ব বালাখানায়।
স্থান ধানমন্ডির আনাম প্লাজার পাশের সুসজ্জিত সুপরিসর একটি এপার্টমেন্টে। একটি হাউজিং কোম্পানী থেকে উৎকোচ হিসাবে পাওয়া ফ্লাটটি, অবশ্য এক স্বজনের নামে রেজিষ্ট্রি করেছেন। ঐ ভবনে সন্ধ্যার পরেই সুরা সাকী নিয়ে মৌজ মাস্তিতে ব্যস্ত হয়ে ওঠেন সরকার দলীয় সাধারন সম্পাদক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছাত্রলীগের নেত্রীদের, সিনেমা জগতের উঠতি নায়িকারা সেখানে গিয়ে জীবন ও শরীর ধন্য করে আসে। পনের থেকে পঞ্চাশ- কোনো অসুবিধা নেই তার!

ছাত্র জীবন থেকে মন্ত্রিত্ব- ওবায়দুলের নারী নিযে ব্যস্ততা পুরোনো হলেও তিনি আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ন সাধারন সম্পাদক পদে নিয়োগ লাভের পরে সরকারী গোয়েন্দারা তার পিছনে অতিরিক্ত খোঁজ খবর নিতে থাকে। ভালোর জন্য ঘুরতে গিয়ে শেষে সেতুমন্ত্রীর এই গোপন বালাখানার খবর গোয়েন্দানের নজরে আসে। ওখানকার মোটামুটি সবকিছু নখদর্পনে রয়েছে তাদের- গোপন ক্যামেরায় ধরা আছে মহিলালীগ এবং ছাত্রলীগ নেত্রীদের, কিছু কথপোকথনও রেকর্ড করা আছে। জা গেছে উপযুক্ত  সময়ে তা প্রকাশ করার জন্য নিরাপদে কিছু কপি সরিয়ে রাখা হয়েছে। দু’দিন আগে ওবায়দুলের মায়ের মৃত্যুর পর শোক কাটাতেও বিশেষ আসরের আয়োজন করা হয় জলসাঘরে।

Facebook Comments
Content Protection by DMCA.com

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.